Home » কবিতা » জি এম মুছা‘র কবিতা

জি এম মুছা‘র কবিতা

Spread the love

 

 

জাতিকে আর কত অপেক্ষা করতে হবে

 

গভীর এক ষড়যন্ত্রের জাল বুনেছিল  সেদিন বিশ্বাসঘাতক মোস্তাক শাহীর দোসররা, চিরতরে দেশ জাতিকে ধ্বংসের পরিকল্পনায় লিপ্ত হয়েছিল, উৎশৃংখল একদল বিপথগামী সেনা সদস্যরা। হঠকারী সিদ্ধান্তে পনেরেই আগস্ট উনিশ ‘শ পচাত্তর, রাতের শেষ প্রহরে, আঁধার তখনও কাটেনি, পূর্ব আকাশে সূবে-সাদেকের অপেক্ষায়, হয়তোবা অঘোরে ঘুমোচ্ছিল দেশসুদ্ধ মানুষ, সঙ্গে ছোট্ট শিশু রাসেল ও তখন বঙ্গমাতার বুকে মুখ লুকিয়ে ঘুমে অচেতন। দিনের আলো ফোটার বেশ খানিকটা বাঁকি, আচমকা গুলির শব্দে কেঁপে উঠল সবাই , নরপিশাচদের বুলেটের আঘাতে বক্ষ বিদীর্ণ করলো অবিসংবাদিত নেতা কালের কিংবদন্তি হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালির সন্তান বঙ্গবন্ধু জাতির জনক শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের সকলকে অত্যন্ত নিষ্ঠুর নির্মম ও নৃশংস ভাবে জাতির শত্রু দুস্কৃতিকারীরা হত্যা করেছিলো। কোনো কিছু বুঝে ওঠার আগেই শত্রুর ছোড়া মুহুর্মুহু গুলির আঘাতে বুকের তাজা রক্তে রঞ্জিত হলো ধানমন্ডির বত্রিশ নম্বর বাড়ির সবকটি ঘর, সিঁড়িতে বয়ে গেল রক্তের প্লাবন, ক্ষমা করিনি বঙ্গমাতাকে, কামাল ,জামাল নব পরিণীতা রোজী জামাল, সুলতানা কামাল কেও, রক্তপিপাসু বর্বর খুনিরা ছোট্ট শিশু রাসেলকেও ক্ষমা করেনি সেদিন, কি অপরাধ ছিল তাঁর? বাড়িটি ঘিরে শুরু হয়েছিল মহা এক হত্যাযজ্ঞের রক্তের হোলি খেলা, এখানেই শেষ নয় হত্যাযজ্ঞের পর উৎসব পালনে এই খুনিরা ট্যাংক লরি, সাঁজোয়া বহর নিয়ে রাস্তায় নেমে উল্লাসে ফেটে পড়েছিল রাজধানীর অলি গলি জুড়ে। ভোর হতে না হতেই গোটা দেশজুড়ে নেমে এলো ভয়ঙ্কর বীভৎস কালো মেঘের ঘনঘটা, দিশেহারা সাধারণ মানুষ, অজানা আশঙ্কায় ভীত সন্ত্রস্ত গোটা দেশবাসী, তারপর যা ঘটলো আমাদের সকলের তা জানা। সে এক মর্মান্তিক করুন ইতিহাসের কালো অধ্যায়ের সৃষ্টি হলো। দেশ ও জাতির সে কলংকমুক্ত করতে জাতিকে অনেকটা বছর অপেক্ষা করতে হয়েছিল, অধীর আগ্রহে আজও জাতি প্রহর গুনছে, সম্পূর্ণ কলঙ্কমুক্ত করতে জাতিকে আর কত অপেক্ষা করতে হবে?

 

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

*